Sunday, 19 April 2020

SBI Customer Care / Balance Enquiry / Mini Statement / Essential Phone Numbers


There is no doubt that State Bank of India is the largest bank in India. Most people in India believe in this bank. So there are more customers than other banks in India. SBI has 22000 branches across India. In India alone, SBI has a subscriber base of 42 crore account holders. They have several branches and many customers outside India. Let's take a look at some of SBI's essential and important phone numbers.

Customer Care : 1800 425 3800
Customer Service : 1860 180 1290
Business Loan : 1800 11 2211
Personal Loan : 080 26599990
SMS : 8008 20 20 20
Balance Enquiry : 09223766666
Cheque Book Request : 09223566666
Mini Statement : 09223866666
SBI Credit Card : 1800 180 1290
SBI Debit Card : 1800 180 1295
Home Loan : 1800 425 3800
Block ATM Card : 567676

Read More

Tuesday, 14 April 2020

করোনা মোকাবিলায় ভারতকে ৫ কোটি টাকা দিলেন গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত গোটা বিশ্ব। কোভিড-১৯ এর ফলে ভয়ংকর ভাবে ভেঙে পড়া বিশ্ব অর্থনীতিকে সাহায্য করার জন্য ৮০০ মিলিয়ন টাকা দেওয়ার কথা জানিয়েছিল গুগল। এই অর্থবর্ষেই ২০০ কোটি টাকা এনজিও, ব্যাঙ্ক এবং ছোটো ছোটো শিল্পকে অনুদান দেওয়া হবে বলেও জানান হয়। ইতিমধ্যেই অ্যাপেলের সঙ্গে একত্রিত হয়ে ব্যবহারকারীদের সুরক্ষা প্রদান করতে কাজ করছে গুগল।



 করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে ভারতকে পাঁচ কোটি টাকা দিয়ে সাহায্য করলেন গুগলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সুন্দর পিচাই। গোটাবিেশ্ব করোনা পরিস্থিতি ক্রমশ ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। তারই মাঝে ভারতের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন গুগলের চিফ্ এক্সিকিউটিভ অফিসার।  গিভ ইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে টুইট করে জানান হয়েছে, "ধন্যবাদ সুন্দর পিচাই, গুগল সংস্থার সঙ্গে মিলে আপনার দেওয়া ৫ কোটি টাকা এই পরিস্থিতিতে খুবই প্রয়োজন ছিল। দৈনিক মজুরির শ্রমিকদের জন্য এই অর্থ অনেকটা সহায়তা করবে।"
 গুগল ছাড়াও অন্যান্য সংস্থা গুলিও ভরতকে করোনা মোকাবিলায় সাহায্য করেছে। টাটা ট্রাস্ট এবং টাটা গ্রুপের একসঙ্গে দিয়েছে ১৫০০ কোটি টাকা, যা এখনও পর্যন্ত ভারতের প্রাপ্ত সর্বোচ্চ অর্থ। এছাড়াও উইপ্রো সংস্থা এবং আজিম প্রেমজি ফাউন্ডেশন একসঙ্গে ১১২৫ কোটি টাকা দিয়ে ভারতকে করোনা সংক্রমের হাত থেকে রক্ষা করার কথা ঘোষণা করেছে । অপরদিকে পেটিএমের তরফ থেকে জানান হয়েছে যে হসপিটালের  স্বাস্থ্যকর্মী, নার্স, সিআরপিএফ এবং সেনাদের সুরক্ষার জন্য ৪ লক্ষ মাস্ক এবং ১০ লক্ষ হাইজিন দ্রব্য তাঁরা তুলে দেবে ভারত সরকার হাতে।
Read More

Kotal Mahindra Bank/Life Insurance Customer Helpline Number

Kotak Mahindra Bank is a private bank. Kotak Mahindra Bank is very loyal even in the days of India's economic downturn. Many have accounts in this bank but due to lack of time it is not time to go to the bank. So Kotak Mahindra Bank has come up with a fancy system. Only by phone call will you be able to know all of your account news, David and credit card issues. You can find out about any loan related to the person in the house or car.



Customer Care : 1860 266 2666
Banking Helpline : 1860 266 2666
Credit Card Helpline : 1800 209 0000
Abroad Helpline : 22 6600 6022
Kotak 811 Helpline : 1860 266 0811
Kotak Life Insurance : 1800 209 8800
Kotak Car Insurance : 1800 266 4545
Kotak Mutual Fund Helpline : 1800 022 6605
Kotak Securities: service.securities@kotak.com
Kotak General Insurance: care@kotak.com
Kotak Life Insurance: clientservicedesk@kotak.com
Kotak Car Finance: service.carfinance@kotak.com
Kotak SME Banking: customerfirst@kotak.com
Kotak credit cards: service.cards@kotak.com

Read More

সেট-টপ একই রেখে পাল্টানো যাবে DTH অপারেটর

প্রতি মাসে মোটা টাকা রিচার্জ করেও পছন্দের চ্যানেল দেখতে পাওয়া যায় না। DTH পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থার কাস্টোমার কেয়ারের হেল্প লাইন নম্বরে অভিযোগ জানানোর পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়, অনেক সময় আবার অভিযোগ জানিয়েও কোনো কাজ হয় না। এই সমস্যায় সম্মুখীন হতে হয় কমবেশি সব DTH গ্রাহকদেরই।



ঠিকঠাক ইন্টারনেট এবং কলিং পরিষেবা না মিললে আমরা যেমন মোবাইলের সিম পোর্ট করি ঠিক তেমনই এবার DTH সংস্থার পরিষেবা পছন্দ না হলে বদলে ফেলতে পারবেন সার্ভিস প্রভাইডার, এমনই ব্যবস্থা চালু করতে চলেছে টেলিকম রেগুলেটারি অথরিটি অব ইন্ডিয়া (TRAI)। সেট টপ বক্সে অন্য সংস্থার DTH পরিষেবা চালু করার ক্ষেত্রে দীর্ঘদিনের একটা সমস্যা ছিল গ্রাহকদের। গ্রাহকদের সেইসমস্ত সমস্যার সমাধান করতে DTH পরিষেবাতেও পোর্টিং-এর সুবিধা আনতে চলেছে TRAI।  TRAI জানিয়েছে সেট টপ বক্স না পাল্টে কেবল DTH পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা বদলে ফেলার সুবিধা চালু হবে অতিশীঘ্রই। করোনা নামক মহামারী শেষে লকডাউন উঠতেই হয়তো চালু হয়ে যাবে এই সিস্টেম
Read More

বাতিল এবারের আইপিএল, জানালেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি

করোনার জন্য গোটা ভারতবর্ষে লকডাউন বাড়িয়ে করা হয়েছে ৩০শে এপ্রিল পর্যন্ত। এর ফলে আইপিএলের ভবিষ্যত নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়। আর এই সংশয়ের মাঝেই খারাপ খবর শোনালেন বিসিসিআই এর সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি। তিনি এবছরের আইপিএল বাতিল হওয়ারই ইঙ্গিত দিলেন। যার ফলে অসন্তুষ্ট দেশের ক্রিকেট প্রেমীরা। কিন্তু করোনার ফলে কোনো অপশন নেই বলে জানান মহারাজা।



সোমবার বোর্ডের ওয়ার্কিং কমিটির সভার আগে বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি একটি ইংরেজি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে আইপিএল-এর ভবিষ্যত নিয়ে করা প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, "মানুষের জীবন যখন বিপন্ন, খেলা আয়োজন করার কোনো পরিস্থিতি নেই, তাই এবারের মতো আইপিএল ভুলে যাওয়াই ভলো।" আইপিএল বাতিল হলে চরম আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকে। কিন্তু অর্থের থেকে মানুষের জীবনের দাম অনেক বেশি। তাই হয়তো আইপিএল বাতিলেরই সিদ্ধান্ত নেবেন বোর্ড সভাপতি। এবছরের আইপিএল শুরু হওয়ার কথা ছিলো ২৯শে এপ্রিল এবং পরে তা পিছিয়ে দেওয়া হয় ১৫ই এপ্রিলে। কিন্তু দেশজুড়ে লকডাউন আরও বেড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত বদল করতে হলো বিসিসিআইকে। লকডাউনের ফলে যেহেতু এয়ারপোর্ট, হোটেল, বিমান পরিবহন সবই বন্ধ। তাই আসতে পারবে না বিদেশি প্লেয়াররা। এখন শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা আইপিএল বাতিল ঘোষণার।
Read More

মোটা মানুষের করোনা আক্রান্তের সম্ভাবনা বেশি, জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা

এমনিতেই মোটা মানুষেরা বিভিন্ন রোগে ভোগেন এবং তারা চিন্তায়ও থাকেন তাদের শরীর নিয়ে। কারণ মোটা মানুষদের শরীরে যখন তখন বাঁসা বাঁধতে পারে বিভিন্ন রোগ। ইতিমধ্যেই চিন,ইতালি ও স্পেনকে ছাড়িয়ে করোনা আক্রন্তের নিরিখে প্রথম স্থানে আমেরিকা। সেখানকার একটি রিপোর্টে এসেছে মোটা মানুষদের জন্যই নাকি আমেরিকাতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে।



বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন মোটা মানুষদের করোনা সংক্রমনের এবং প্রানহানির ঝুঁকি বেশি। মোটা মানুষদের শরীরে যেহেতু এমনিতেই কিছু দীর্ঘস্থায়ী রোগ বাঁসা বেঁধে থাকে এবং এই সমস্ত মানুষের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেক কম থাকে যার ফলে তাদের শরীরে সহজেই থাবা বসাতে পারে করোনা ভাইরাস। মোটা মানুষেরা ডায়াবেটিস, হার্ট বা কিডনির সমস্যায় ভোগেন যার ফলে তাদের শরীরে ভয়াবহ আকার নিতে পারে এই করোনা ভাইরাস। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মোটা মানুষদের ওজন বেশি হওয়ার ফলে তাদের ফুসফুসে বেশি চাপ পড়ে এবং করোনা ভাইরাস যেহেতু মানব শরীরে সবার আগে ফুসফুসে আক্রমণ করে সেহেতু মোটা মানুষদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কয়েকগুণে বেড়ে যায়।
Read More

পরতেই হবে মাস্ক, নয়া নির্দেশিকা রাজ্য সরকারের

লকডাউনের মেয়াদ বেড়ে হয়েছে ৩০শে এপ্রিল। কলকাতার বিভিন্ন অঞ্চলে নজরদারি চালাতে ড্রোন ব্যবহার করছে কলকাতা পুলিশ। এবার ওড়িশা ও উত্তরপ্রদেশের পথেই হাঁটলো পশ্চিমবঙ্গ। এবার থেকে পশ্চিমবঙ্গে যে কোনো জায়গায় বেরোতে হলেই পরতে হবে মাস্ক। রাজ্য সরকারের তরফ থেকে বাধ্যতামূলক করা হলো মাস্ক ব্যবহার। মাস্ক ব্যবাহার না করলে কড়া ব্যবস্থা নেবে রাজ্য প্রসাশন।



যেহেতু করোনা ভাইরাস নিশ্বাস প্রশ্বাসের মাধ্যমে একজনের দেহ থেকে অন্যজনের দেহে ছড়ায় তাই মাস্ক ব্যবহার করলে এই সংক্রমন থেকে রক্ষা পাওয়া যেতে পারে। যেহেতু ভারতবর্ষে এখনও গোষ্ঠী সংক্রমন হয়নি তাই আগেভাগেই উপযুক্ত ব্যবস্থা নিলো রাজ্য সরকার। তবে জানানো হয়েছে যদি কারো কাছে মাস্ক না থাকলে তাহলে সে রুমাল ব্যবহার করতে পারে। এছাড়া যে কোনো কাপড় ভাজ করেও মুখ,নাক ঢেকে বাইরে যাওয়া যেতে পারে। প্রয়োজনে গামছাও ব্যবহার করা যেতে পারে বলে জানিয়েছে রাজ্য সরকার। আমেদাবাদ, মুম্বাই ও দিল্লির মতো শহরগুলিতে আগে থেকেই মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক ছিলো। এবার সেই একই পথে হাঁটলো পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য প্রশাসন।
Read More

Tuesday, 7 April 2020

ভারতে লকডাউনে ৯৫ শতাংশ দর্শক বাড়লো পর্নহাবের

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে গোটা ভারতবর্ষ জুড়েই চলছে লকডাউন। হোম কোরেন্টাইনে ভারতীয়রা সময় কাটাচ্ছে ফোন এবং ইন্টারনেটের সঙ্গেই। সদ্য প্রকাশিত একটি রিপোর্টে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী লকডাউনে অনলাইনে পর্ন দেখে সময় কাটাচ্ছেন একটা বিরাট সংখ্যক ভারতীয়। 


সম্প্রতি পর্নহাব প্রকাশিত একটি তথ্য অনুযায়ী লকডাউন ঘোষণার পর ভারতীয়রা অনেক বেশি সময় কাটাচ্ছেন পর্ন সাইটে। লকডাউন ঘোষণা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ভারতীয়দের পাশে থাকার জন্য একমাসের জন্য ফ্রীতে প্রিমিয়াম দিয়েছিলো পর্নহাব। পর্নহাবের এই অফারে কতটা আনন্দিত তারই প্রমান মিলল এই রিপোর্টে। মার্চ মাসে পর্নহাব ভারত থেকে যে দর্শক পেয়েছে তা এখনও পর্যন্ত ভারত থেকে সর্বোচ্চ প্রাপ্ত। ভারতে ৯৫% শতাংশ ট্র্যাফিক বেড়েছে পর্নহাবের। 


শুধু ভারত নয়, আমেরিকা, ইংল্যান্ড, স্পেন, সুইজারল্যান্ডের মতো বিশ্বের অন্যান্য দেশ গুলিতেও পর্ন দেখার প্রবনতা বেড়েছে বলে দাবি করছে পর্নহাব। তবে ভারতেই এই বৃদ্ধির হার সর্বোচ্চ। পর্নহাবের প্রেসিডেন্ট একটি বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানান তাদের পর্নহাব প্রিমিয়াম বিনামূল্যে দেওয়ার উদ্দেশ্য ছিলো মানুষকে বাড়িতে থাকার ব্যাপারে উৎসাহিত করা। ভারতে এই উদ্দেশ্য সফল বলেই মনে করছে তারা। তারা মনে করছে সামাজিক দূরত্ব এবং ফ্রী পর্ন দুটোকেই ভারতীয়রা বেশ ভালোভাবে উপভোগ করছে। তাই তাদের উদ্দেশ্যও সফল।
Read More

বাদশার সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বললেন লোকশিল্পী রতন কাহার


অবশেষে ভিডিয়ো কথা হলো দুই শিল্প রতন কাহার এবং বাদশার। বাংলার শিল্পী রতন কাহারকে বাদশা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন লকডাউন মিটে গেলেই রতনবাবুর সঙ্গে দেখা করবেন তিনি। রতন কাহারের সঙ্গে গান গাইবেন বলেও আশ্বাস দিয়েছেন বাদশা। রতন বাবু বলেন, ''হ্যাঁ, বাদশা আমার সঙ্গে কথা বলেছেন। উনি ভিডিয়ো কলে আমি ওনাকে দেখলাম, কথাও বললাম। শুক্রবার রাতে ফোন করেছিলেন বাদশা। বললেন, লকডাউন মিটে গেলে সিউড়ি আসবেন এবং আমার সঙ্গে দেখা করবেন। আমার সঙ্গে গান গাইবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। অনেকবার বললেন, এই লকডাউন না হলে এখনই যেতাম। আমার নাতি, নাতনি ও মেয়ের জন্য আর্থিক সাহায্য করবেন বলেছেন। এবার ওনার ব্যাপার উনি কী করবেন, দেখা যাক। ওনার সঙ্গে দেখা করার জন্য অপেক্ষায় রইলাম। '' 

এবিষয়ে রতন কাহারের ছেলেকে জিজ্ঞাসা করা হলে, তিনি বাদশার ভিডিয়ো কল করার কথা স্বীকার করে নেন। বলেন, ''বাদশা ফোন করেছিল, বাবার সঙ্গে কথা বললো। বাবাও বাদশাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন, বলেছেন উনি বাবার গানটা গাইলেন বলেই বাবার নামটা নতুন করে উঠে এলো।'' বাদশা জানিয়েছেন, ""বড়োলোকের বিটি"লোর মতো গান যে শিল্পী গাইতে পারে তিনি নিসন্দেহে মহান শিল্পী।'' গত বৃহস্পতিবারই 'গেন্দাফুল'-এর দলের তরফে বাংলার  লোকশিল্পী রতন কাহারকে প্রথম ফোন করা হয়। তখনই রতন বাবু নিজেই বাদশার সঙ্গে সরাসরি কথা বলার আগ্রহ প্রকাশ করেন। টিম 'গেন্দাফুল'-এর তরফে জানানো হয় শুক্রবার ভিডিয়ো কলে বাদশা তার সঙ্গে কথা বলবেন। সেই মতোই শুক্রবার রাতে রতন কাহারের সঙ্গে ভিডিয়ো কলে কথা বলেন বলিউড সিঙ্গার বাদশা।
Read More

খোদ্দেরের দেখা নেই, করোনার প্রভাবে সুনশান সোনাগাছি

রাতে শহর যখন ঘুমিয়ে পড়ে, তখন ‘সূর্যোদয়’ হয় চিত্তরঞ্জন অ্যাভিনিউ থেকে দুর্গাচরণ মিত্র স্ট্রিট হয়ে রবীন্দ্র সরণিতে। এশিয়ার সবচেয়ে বড়ো যৌনপল্লী কলকাতার সোনাগাছি। দুপুরের পর থেকেই সেখানে ভিড় জমতে শুরু করে। কিন্তু লকডাউনের ফলে বসন্ত বিকেলে একেবারে খাঁ খাঁ করছে সোনাগাছি। যৌনকর্মী কম, খদ্দেরও হাতে গোনা।


প্রতিদিন প্রায় ৩০-৪০ হাজার লোক আসলে এশিয়ার সবচেয়ে বড়ো এই যৌনপল্লীতে। ভ্রাম্যমাণ ও স্থানীয় মিলিয়ে ১০-১২ হাজার যৌনকর্মীর ইনকামের একমাত্র সম্বল এই সোনাগাছি। করোনা সংক্রমনের আতঙ্কে যৌনপল্লিমুখো হওয়া কমিয়েই দিয়েছেন খদ্দেররা। খদ্দের কম আসায় আনাগোনা কমেছে বিভিন্ন যায়গা থেকে আসা ভ্রাম্যমাণ যৌনকর্মীদেরও। এখন গড়ে ৫০০ জন খদ্দেরও আসছেন না পল্লীতে। যৌনকর্মীর সংখ্যাও হাতে গোনা কয়েকজন। এক যৌনকর্মী বললেন, ‘দোলের পর থেকেই লোকজন কম। আগে দিনে অন্তত তিন-চার জন খদ্দের পেয়ে যেতাম। ক’দিন ধরে দেখছি, এক-দু’জন পাওয়াই অনেক!’ সংক্রমণের ভয় নেই? পাশে দাঁড়িয়ে থাকা অন্য এক যৌনকর্মীর জবাব, ‘ভয় একটা আছে, কিন্তু কী করব! আমাদের যা কাজ, তাতে তো মাস্ক পরে থাকলে চলবে না!’

আরও এক যৌনকর্মীর গলায় শোনা গেলো অসহায়ের সুর, ‘দেশে টাকা পাঠাতে হয়। বাচ্চার খরচ রয়েছে। কাজ হোক না হোক, ঘরভাড়া দিতে হবে। এত ভয় পেলে আমাদের চলবে না!’ সোনাগাছিতে যৌনকর্মীদের ঘড় ভাড়া নিতে হয়। এই অবস্থায় ভাড়া মেটানোর টাকা জোগাড় করাই বড় চ্যালেঞ্জ যৌনকর্মীদের সামনে। যৌনকর্মীদের সংগঠন দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির সভানেত্রী বিশাখা লস্কর বলেন ‘মেয়েদের কোনও সমস্যা হচ্ছে কি না, দেখতে রাতে আমরা পরিদর্শনে বেরোই। শেঠ গলিতে ২০০-২৫০ মেয়ে থাকে। বৃহস্পতিবার রাতে দেখি হাতে গোনা ৪-৫ জন দাঁড়িয়ে। ভিড় কম কেন, জানতে চাইলে ওরা বলে, কী একটা রোগ বেরিয়েছে, লোকজন আসছে না! সব পল্লিতেই এক অবস্থা।
Read More

National Testing Agency Extended The Date Of Application


National Testing Agency (NTA) has announced a new notice for the recruitment of UGC-NET for ‘Assistant Professor’ and for "Junior Research Fellowship'. NTA extended dates for online application. 

Dates
‌Starting Date : 16/03/2020
‌Extended Last Date : 16/05/2020
‌Publishing Admit Card : 15/05/2020
‌Exam Date : 15/06/2020-20/06/2020
‌Result Out : 05/07/2020


Age 
‌Applicants for this post must be within 30 years of age


Qualification 
‌At least 55% marks in Master"s Degree or Equivalent Examination


Fees
‌Rs.1000/- for General 
‌Rs.500/- for OBC
‌Rs.250/- for SC/ST

Read More

Sunday, 5 April 2020

করোনা ভাইরাসের কবলে পড়ে প্রয়াত সোমালিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী

করোনাভাইরাস এরই মধ্যে অনেক বিশ্বের অনেক প্রখ্যাত মানুষের প্রাণ কেড়েছে। সেই তালিকায় নবতম সংযোজন সোমালিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নুর হাসান হুসেইন। কোভিড-১৯ এর সংক্রমণে লন্ডনের হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। এর আগে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে প্রান হারান অস্ট্রেলিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন ইংল্যান্ডের রানীও।

করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে প্রান হারালেন পূর্ব আফ্রিকার সোমালিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নুর হাসান হুসেইনের । মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। শরীরে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ার পর লন্ডনের কিংস কলেজ হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। আজ সকালে সেখানেই তাঁর জীবনাবসান হয়।

২০০৭ সালের নভেম্বর থেকে ২০০৯-এর ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সোমালিয়ার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন নুর হাসান হুসেইন। জন্মেগ্রহন করেছিলেন সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুতে।

সোমালিয়ায় এখন পর্যন্ত ৫ জনের দেহে করোনা ভাইরাস পজিটিভ ধরা পড়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে একজন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। বাকি চার জন এখনও হাসপাতালে  চিকিৎসাধীন আছেন। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর আকস্মিক মৃত্যুতে শোকের ছায়া গোটা সোমালিয়া জুড়ে।

এদিকে, সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১০ লক্ষের কাছাকাছি মানুষ। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে প্রায় ৫০ হাজার জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ লক্ষ মানুষ।
Read More

করোনা মোকাবিলায় পিএম ফান্ডের পাশাপাশি দিল্লি,মহারাষ্ট্র ও বাংলার সিএম ফান্ডেও অনুদান দলেন শাহরুখ খান।

কয়েকদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ার একাংশ প্রশ্ন তোলেন বলিউডের বাদশা শাহরুখ খানকে নিয়ে। করোনা মোকাবিলায় তিনি চুপ কেন, কেন তিনি কোনো অনুদান দিচ্ছেন না, এই সংক্রান্ত একাধিক প্রশ্ন তুলেছিল নেটিজনেরা।  এবার দিলেন সমস্ত সমালোচনায় জবাব।



করোনা মোকাবিলায় এগিয়ে এসেছে বলিউডের একাংশ। প্রধানমন্ত্রী রিলিফ ফান্ডে ২৫ কোটি টাকা অনুদান দিয়েছন অক্ষয় কুমার। ২৫ হাজার দিন মজুরের দায়িত্ব নিয়েছেন বলিউডের ভাইজান সলমন খান। এরপরই সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে প্রশ্ন ওঠে বলিউডের বাদশাকে নিয়ে।

অবশেষে খানিক সময় নিয়ে একটু অন্য ভাবে করোনা ভাইরাসের মোকাবিলা করতে এগিয়ে এলেন কিং খান।   শাহরুখ খান নিজে ট্যুইট করে জানিয়েছেন দেশ এবং পশ্চিমবঙ্গ ও মহারাষ্ট্র রাজ্যের জন্য করোনা মোকাবিলায় কী কী করছে তাঁর সংস্থাগুলি। শাহরুখ খানের মালিকানাধীন কলকাতা নাইট রাইডার্স এবং রেড চিলিজ এন্টারটেইনমেন্ট এক বিবৃতিতে জানায় পিএম রিলিফ ফান্ডে তারা অনুদান দেবে। এছাড়া মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অনুদান দেবে রেড চিলিজ এন্টারটেইনমেন্ট।  কলকাতা নাইট রাইডার্স মহারাষ্ট্র ও পশ্চিমবঙ্গে মেডিক্যাল স্টাফদের ৫০ হাজার ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম দেবে।

দেশের এই কঠিন পরিস্থিতিতে নিজের মানবিকতার পরিচয় দিয়ে এগিয়ে এসে এতোটাকা দিয়ে দেশের জনগণেকে সাহায্য করায় বেজায় খুশি শাহরুখ খানের ভক্তরা।
Read More

চলতি শিক্ষাবর্ষে পঞ্চম শ্রেনি থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত কোনো পাশ-ফেল থাকছে না, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই নির্দেশে মাননীয়  শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত কোনও পাস-ফেল থাকছে না। প্রথম শ্রেণি থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সবাইকে পাস করাতে হবে এই শিক্ষাবর্ষে। কাউকে ফেল করানো যাবে না, সবাইকে পাশ করাতে হবে, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।
শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, "শিক্ষা দফতর সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এবার প্রথম শ্রেণি থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত যে যেখানে আছে, তার পরের ক্লাসে তারা উত্তীর্ণ হবে। তাদের পাস করানো হবে। কাউকে ফেল করানো হবে না। কাউকে আটকে রাখা হবে না। এব্যাপারে কোনও অন্যথা হবে না।"


একইসঙ্গে তিনি আরও বলেন "নবম শ্রেণি থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়াদের নিয়ে শিক্ষা দফতর একটি কর্মসূচি নেওয়ার ভাবনায় আছে। প্রযুক্তির মাধ্যমে পড়াশোনা অব্যাহত রাখার ব্যাপারে পরিকল্পনা করছে সরকার।' শিক্ষামন্ত্রী জানান "ইমেল, ওয়েবসাইট বা দূরদর্শনের মাধ্যমেও যদি সেই ব্যবস্থা করা সম্ভব হয়, তা চেষ্টা করা হচ্ছে।' এই বিষয়ে শিক্ষা দফতর ইতিমধ্যেই প্রাথমিক পর্যায়ে কাজ করেছে। এখন সরকারি স্তরে চূড়ান্ত অনুমোদন পাওয়ার অপেক্ষা। মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুমোদনের পরই সেক্ষেত্রে প্রযুক্তির মাধ্যমে শিক্ষাদান পদ্ধতি কার্যকর করা হতে পারে বলে সুত্রের খবর।

এখন দেখা করোনা ভাইরাসের মধ্যেও পড়াশোনা চালু রাখতে গিয়ে যদি ডিজিটাল পদ্ধতিতে যদি পড়াশোনার সিস্টেম চালু হয় তাহলে তা আগামী প্রজন্মের জন্য বেশ ভালোই হবে মনে করা হচ্ছে।
Read More

করোনা মোকাবিলায় ভারতকে অর্থ সাহায্য করছে বিশ্ব ব্যাঙ্ক

করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সারাবিশ্বজুড়েই তলানিতে ঠেকেছে অর্থনীতি। আন্তর্জাতিক অর্থভান্ডার স্বীকারও করে নিয়েছে এরকম আর্থিক মন্দা এর আগে কোনোদিন আসেনি। উন্নয়নশীল দেশগুলিকে এই সময় আর্থিক সাহায্য দিতে না পারলে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ আকার নিতে পারে। যাদিও ভারতের জন্য কিছুটা স্বস্তির খবর দিয়েছে রাস্ট্রসংঘ। আর্থিক মন্দার প্রভাব খুব খারাপ ভাবে নাও পড়তে পারে ভারতে। করোনা মোকাবিলায় ভারতের পদক্ষেপ বারবার প্রসংশা পেয়েছে WHO-এর কাছে। অর্থনীতিবিদরা জানিয়েছেন করোনা মোকাবিলায় এই টানা লকডাউনের ফলে ভারতের জিডিপি নামতে পারে ৩-এর নীচে। এরফলে খরচ সামলাতে ঋন নিতে হতে পারে সরকারকে। একইসঙ্গে করোনা নামক মহামারী রুখতে খরচ বেড়েছে কয়েকগুণ। এই ভয়ংকর অবস্থা থেকে ঘুড়ে দাঁড়াতে অনেকটাই সাহায্য দরকার ভারতের মতো অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশগুলির।


এরমধ্যে ভারতের জন্য আরও একটি খুশির খবর। করোনা মোকাবিলায় ভারতের পাশে দাঁড়ালো বিশ্ব ব্যাঙ্ক। বড়ো অঙ্কের অনুদান ঘোষণা করলেন বিশ্ব ব্যাঙ্কের প্রেসিডেন্ট ডেভিড মালপাস। বিশ্ব ব্যাঙ্কের তরফে ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থসাহায্য মঞ্জুর হয়েছে ভারতের জন্য। ভারতীয় মুদ্রায় যার মূল্য সাড়ে সাত হাজার কোটির সামান্য বেশি। গোটা বিশ্বের বহু দেশ লড়াই করছে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করতে। হাজার পরীক্ষা, টানা লকডাউন কোনোকিছু দিয়েই সামাল দেওয়া যাচ্ছে না পরিস্থিতি। সমস্ত ব্যবসা বানিজ্য বন্ধ, বন্ধ বিমান চলাচল ও আদান প্রদান। এইমত অবস্থায় ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলো বিশ্ব ব্যাঙ্ক। বিশ্ব ব্যাঙ্কের তরফে জানানো হয়েছে, করোনা ভাইরাস মোকাবিলার পরীক্ষা নিরীক্ষা ব্যবস্থা আরও ভালো হোক ভারতে। ল্যাবগুলো আরও অনেক উন্নত হোক। চিকিৎসা ব্যবস্থায় নিরাপত্তা আরও বাড়ানে হোক। তার জন্যই এই অর্থসাহায্য।
Read More

Friday, 3 April 2020

'চা কাকু'র পাশে দাঁড়ালেন আমাদের প্রিয় দাদা সৌরভ গাঙ্গুলি।

প্রধানমন্ত্রীর ডাকা জনতা কার্ফু-র দিন চা খেতে বেড়িয়ে আচমকাই এক তরুণীর ভিডিয়োতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়েছিলেন। নেটদুনিয়ায় মিম হয়ে ঘুরে বেড়িয়েছিলো.... "আমরা কি চা খাবো না? খাবো না আমরা চা?" ফেসবুক থেকে হোয়াটসঅ্যাপে মিম হয়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন মৃদুলবাবু। হঠাত্ করেই প্রচারের আলোয় চলে এসেছিলেন। কিন্তু আলোর আড়ালেই তো লুকিয়ে থাকে ঘোর অন্ধকার!


 মৃদুলবাবু থাকেন দক্ষিণ কলকাতার শ্রী কলোনিতে, পেশায় দিনমজুর। সেই "আমরা কি চা খাবো না?" ভিডিয়ো ভাইরাল হওয়ার পর আরও একটি ভিডিও ভাইরাল হয়, সামনে আসে তাঁর মাটি কোপানোর ভিডিয়ো। কাজের ছুটিতেই সেদিন পাড়ার দোকানে চা খেতে গিয়েছিলেন তিনি। কয়েকদিনের মধ্যেই চা-কাকার আর্থিক ও পারিবারিক দুরবস্থার কথা প্রকাশ্যে আসে।

 শ্রমিকের কাজ করা চা-কাকুর ভিডিয়ো ভাইরাল হয় নেট দুনিয়ায়। কিছুদিন আগেই মৃদুল বাবু ও তাঁর ছেলের একটি ভিডিয়ো ভাইরাল হয় সোশ্যাল নেটওয়ার্কে। তাঁর পরিবারের আর্থিক সমস্যার কথা জানিয়ে সকলকে পাশে থাকার আবেদন জানান মৃদুল বাবু। এবার মৃদুল বাবুর পাশে দাঁড়ালেন সৌরভ গাঙ্গুলি। শ্রী কলোনির বাসিন্দা ওই চা-কাকুর সাহায্যর্থে এগিলে এলো সৌরভ গাঙ্গুলি ফাউন্ডেশন।

যদিও ইতিমধ্যেই স্থানীয় ওয়ার্ডের কাউন্সিলক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। দেশজুড়ে কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে মৃদুল বাবুর পরিবারের হাতেও চাল-ডাল খাদ্য সামগ্রী তুলে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী। দাদার এই মানবিক প্রয়াসে খুশি তার ফ্যানেরা।

Read More

৫১-তে পড়লেন অজয় দেবগণ,সেই উপলক্ষে ৫১ লক্ষ টাকা দিলেন ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির দৈনিক রোজগেরে কর্মীদের.

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে ভারতবাসীকে বা্ঁচাতে দেশজুড়ে লকডাউন চলছে। অফিস-আদালত থকে শুরু করে স্কুল-কলেজ বন্ধ সবকিছু, বন্ধ সিনেমা এবং সিরিয়ালের শুটিংও। এবার মুম্বই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির দৈনিক রোজগেরে কর্মীদের পাশে দাঁড়ালেন বলিউড অভিনেতা অজয় দেবগণ। শুটিং বন্ধ থাকায় রোজগারও বন্ধ ওই কর্মীদের। মুম্বই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির দৈনিক রোজগেরে কর্মীদের সাহায্যার্থে ৫১ লক্ষ টাকা অনুদান  দিলেন অজয় দেবগন। ওয়েস্টার্ন ইন্ডিয়া সিনে এমপ্লয়ীজ (FWICE) এর তরফে টুইট করে ধন্যবাদ জানানো হয়েছে অজয় দেবগণকে তার এই সাহায্যের জন্য। ধন্যবাদ জানিয়েছেন এই সংস্থার সভাপতিও।


অন্যদিকে সম্প্রতি সলমন খানের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা বিয়িং হিউম্যানের তরফে ওয়েস্টার্ন ইন্ডিয়া সিনে এমপ্লয়ীজের ২৫ হাজার কর্মীর আর্থিক দায়ভার নেওয়া জানানো হয়েছে। এবিষয়ে সম্প্রতি ওয়েস্টার্ন ইন্ডিয়া সিনে এমপ্লয়ীজের (FWICE) সভাপতি বি এন তিওয়ারি সংবাদ সংস্থা PTI-কে জানান, ''সলমন খানের সংস্থা বিয়িং হিউম্যানের মাধ্যমে এই সাহায্য কর্মীদের পরিবারের কাছে পৌঁছে দেবেন। গত তিনদিন আগেই সলমনের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার পক্ষ থেকে ফোন করে আমাদের একথা জানানো হয়। আমাদের প্রায় ৫ লক্ষ কর্মী রয়েছে। যাঁদের মধ্যে ২৫ হাজার কর্মী আর্থিক সাহায্যের ভীষণ প্রয়োজন। বিয়িং হিউম্যানের পক্ষ থেকে এই কর্মীদের দায়িত্ব বহনের কথা জানানো হয়েছে। এই সমস্ত কর্মীরা যাতে সরাসরি টাকা  সরাসরি পায়, তাই বিয়িং হিউম্যানের পক্ষ থেকে তাঁদের অ্যাকাউন্টের যাবতীয় তথ্যও নিয়ে নেওয়া হয়েছে।''

এদিকে ভোজপুরী অভিনেতা রবি কিষণ ভোজপুরী ফিল্মি ইন্ডাস্ট্রির সমস্ত আর্থিক ভাবে দুর্বল দৈনিক রোজগেরে কর্মীদের পরিবারের আর্থিক দায়-দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে। তামিল ইন্ডাস্ট্রির ক্ষেত্রেও এরকম কিছু খবর পাওয়া যাচ্ছে।

এছাড়াও বরুণ ধাওয়ান, সাইফ আলি খানের মতো আরো অনেক বলিউড অভিনেতারা করোনা মোকাবিলায় পিএম রিলিফ ফান্ডে অনুদান করছেন।
Read More

মাত্র ৩ দিনেই প্রভিডেন্ট ফান্ডের (PF) টাকা এবার অ্যাকাউন্টে পাবেন সরকারী কর্মচারীরা।

ত্রাসের নাম করোনা ভাইরাস। একটি ছোট্ট অনুজীব, কিন্তু তার কাছেই হেরে গেলো সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ জীব মানুষ। বিশ্বের বড়ো বড়ো ধনী এবং উন্নত দেশগুলিও পারেনি একে আটকাতে। পারেনি ভারতবর্ষও। গোটা বিশ্বে কমবেশি ১০ লক্ষ মানুষ আক্রান্ত এই ভাইরাসে।


করোনা ভাইরাসের মোকাবিলা করতে গোটা ভারতবর্ষে জুড়ে লকডাউন এবং তার ফলে সৃষ্টি হওয়া ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে সম্প্রতি একগুচ্ছ প্রকল্পের ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। বর্তমানে এই আতঙ্কিত  পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই EPF আইনে বড়সড়  রদবদল ঘটাচ্ছে মোদী সরকার। এইমত পরিস্থিতিতে যেকোনো জরুরি প্রয়োজনে কেন্দ্রীয় সরকারী কর্মচারীরা নিজেদের প্রভিডেন্ট ফান্ডের (PF) ৭৫ শতাংশ বা তিন মাসের বেতন তুলে নিতে পারেন। করোনা সংক্রমনের হাত থেকে বাঁচার জন্য এই টানা ২১ দিন লকডাউনের ফলে জনগন যেনো কোনো সমস্যায় না পড়ে তারজন্যই এই সুযোগ দেওয়া হচ্ছে।

কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তের পর বিবৃতি দিয়ে এই একই সুযোগের কথা জানিয়েছে এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড অরগানাইজেশান (EPFO)। সোস্যাল মিডিয়ায়  টুইটের মাধ্যমেও জানানো হয়েছে অনলাইন পদ্ধতির কথা,। যে পদ্ধতি অবলম্বন প্রত্যাহার করা যাবে প্রভিডেন্ট ফান্ড (PF) অ্যাকাউন্টের ৭৫ শতাংশ টাকা বা তিন মাসের বেতন। বিস্তারিত জানতে EPFO এর ওয়েবসাইটে যান।
Read More

Thursday, 2 April 2020

গেন্দা ফুল নিয়ে লাইভ করলেন বাদশা। নিতে চাইলেন গীতিকার ও সুরকার রতন কাহারের দায়িত্ব।

জনপ্রিয় গায়ক বাদশা গত রাতে একটি ফেসবুক লাইভ করেছেন। এবং তাতে স্বীকার করেছেন, গেন্দা ফুল গানে তিনি যে বড়লোকের বিটি লো এর দুটি লাইন ব্যবহার করেছেন, সেখানে গীতিকার রতন কাহারের নাম ব্যবহার না করা অন্যায় হয়েছে। কিন্তু তিনিই বা কী করে জানবেন। এর আগেও তো এই গানটি বহু জায়গায় ব্যবহার করা হয়েছে। কোথাও রতন কাহরের নাম দেওয়া হয়নি। কিন্তু জানার পর বাদশা এখন বলেছেন, রতন কাহারকে যাবতীয় সাহায্য করতে তিনি রাজি। এমনকি তাঁর মেয়ের পড়াশোনার খরচও বাদশা দেবেন। এবার? বাংলার সংস্কৃতির ধারক ও বাহকরা কি বলবেন? ঠিক কজন এর আগে জানতেন যে বড়লোকের বিটি লো আসলে রতন কাহার লিখেছেন? গীতিকারের নাম উচ্চারণ না করার সৌজন্যে কিন্তু এই বঙ্গও পিছিয়ে নেই। না হলে অনেক আগেই 'রাজা রানী রাজি' ছবিতে এই নির্দিষ্ট গানের গীতিকার হিসেবে রতনবাবুর নাম যেত। এই গান চুরির ট্র্যাডিশনে বাদশা ব্যতিক্রম নন।  এই লাইভ করেই তিনি সেটা প্রমাণ করে দিয়েছেন। এবার ফের প্রশ্নগুলো আমাদের দিকেই ওঠে। অল্প জেনে অল্প বুঝে আমরা কি একটু বেশিই রিঅ্যাক্ট করে ফেলেছি না?



বাদশা তাঁর নতুন গানে ব্যবহার করেছেন একটি বাংলা লোকগীতি। রতন কাহারের লেখা। কিন্তু গীতিকারের নাম না দেওয়ায় হয়েছে বিতর্ক। আসলে সমস্যাটা অন্য জায়গায়...


বাদশা এবং জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ়ের নতুন মিউজ়িক ভিডিয়ো ‘গেন্দা ফুল’  মুক্তি পাওয়ার পর যেভাবে বাঙালি শ্রোতাকুল রে রে করে তেড়ে গিয়েছেন বাদশার দিকে... সেটা খুব স্বাভাবিক। সত্যিই তো, রতন কাহারের সৃষ্টি ‘বড়লোকের বিটি লো’কে যেভাবে গানে ব্যবহার করেছেন বাদশা, শুধু ‘অরিজিনাল লিরিক্স: বাংলা ফোক’ বলে, তাতে রাগ হওয়া তো স্বাভাবিক! সৃষ্টিকর্তার নাম দিতে এত অসুবিধে কেন? আর রতন কাহারকে খুঁজে বের করে এর অনুমতি নিলে, তিনি নিশ্চয়ই ‘না’ বলতেন না। আনন্দলোক এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করছে। কিন্তু পাশাপাশি একটা প্রশ্ন এখানে না তুললেই নয়। সত্যি কথা বলুন তো, এই ঘটনাটার আগে ঠিক কতজন জানতেন, এই গানটি আসলে রতন কাহারের লেখা? আচ্ছা, এই বঙ্গভাণ্ডারে তো বহু লোকগীতি এভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে... সেগুলো প্রত্যেকটার সৃষ্টিকর্তার নাম কি আমরা জানি? আবার বলছি, এই ঘটনাটা একেবারেই সমর্থনযোগ্য নয়। এরকম ঘটনা আগেও হয়েছে। বহুক্ষেত্রে বলিউড, বাংলা বাউল এবং লোকসঙ্গীতকে ব্যবহার করেছে নিজেদের স্বার্থে। ফলে ঘটনাটা হয়তো ব্যতিক্রম নয়। এমনকী, এই গানটির রিসার্চ টিমেরও উচিত ছিল রতন কাহারকে খুঁজে বের করা। তা না করে ‘বাংলা লোকগীতি’ বলে তকমায়িত করাটা অমার্যনীয় অপরাধ। কিন্তু তা-ও বলছি, আমরা নিজেরাও কি দোষী নই? বহু প্রদেশের বহু লোকসঙ্গীতকে আমরা সেই প্রদেশের পরিচায়ক হিসেবেই জেনে এসেছি। আলাদা করে সৃষ্টিকর্তার নাম কি জানার প্রয়োজনবোধ করেছি? ফলে নিজেদের দিকে আঙুলটাই আমাদের আগে তোলা উচিত।

শিল্পীর সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি, তার সম্মান। টাকা দিয়ে আর যা কিছু কেনা যাক, শিল্পীর শিল্প সত্যা কে নয়। বাদশার অমূল্য ব্যবহারহীন মাথায় ওটা ঢুকবে না।

এখানে সবচেয়ে বড় সমস্যা, এখানকার শিল্পী রা তো পরিপূর্ণ সম্মান তো পায়ইনি বরং তাদের কে সবসময় ছোট করা হয় , এখানকার মিডিয়া ও লোকজনের দারা। তাই এখানকার শিল্পী ও শিল্প কোনোটাই উন্নতি লাভ করেনি।
আর আমারা যেটা ট্রন্ড চলে সেটাই করি বা পরি। সে শারি হোক  কি নারী, প্রেম হোক কি গেম। যেটা চলে আমারা সেটাই করি।
কারণ আমারা বাঙালি ,
বুদ্ধিজীবী বাঙালী ।
Read More

SBI Customer Care / Balance Enquiry / Mini Statement / Essential Phone Numbers

There is no doubt that State Bank of India is the largest bank in India. Most people in India believe in this bank. So there are more c...